1. admin@hilinews24.com : admin :
  2. newsroomhili@gmail.com : hilli news : hilli news
  3. wadminw@wordpress.com : wadminw : wadminw
বৃহস্পতিবার, ০২ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০১:২৩ অপরাহ্ন

বগুড়ার মহাস্থানে ভূসিদস্যু কর্তৃক দখলকৃত অবৈধ স্থাপনা গুড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় এলাকাবাসী, জনমনে স্বস্তি

  • শনিবার, ১৪ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ১২

এস আই সুমনঃ স্টাফ রিপোর্টার,বগুড়াঃ বগুড়ার মহাস্থানে ভূসিদস্যু কর্তৃক রাতের আধারে সরকারি জাগয়া দখল করে গড়ে তোলা অবৈধ স্থাপনা অবশেষে গুড়িয়ে দিয়েছে স্থানীয় সচেতন এলাকাবাসী। এঘটনায় চালক পথচারী ও জনমনে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা যায়, বগুড়ার মহাস্থান ত্রি-মোহনী ব্যস্ততম এলাকা। এখানে সাউথ এশিয়ান সাব রিজিওনাল ইকোনমিক কো-অপারেশন সাসেক-২ প্রকল্পের আওতায় নির্মিত হচ্ছে ১৯১ কিলোমিটার দীর্ঘ এলেঙ্গা-হাটিকুমরুল-
রংপুর জাতীয় মহাসড়ক। মহাস্থানে সাসেক-২ প্রকল্পের কাজ শুরুর আগেই সড়কের পাশে বহু বছর ধরে দোকানপাট করা ব্যবসায়ীদের পূর্ণবাসন করতে তাদের ব্যবসার ক্ষতিপূরণ বাবদ অবকাঠামোর অর্থ দিয়ে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। মহাস্থানে প্রায় ৯০ ভাগ সাসেক এর আওতায় সড়কের কাজ সম্পন্ন। বাকী রয়েছে মহাস্থান ত্রি-মোহনী সহ সবজি বাজার। এর ভিতর অনেক কর্মহীন মানুষেরা অস্থায়ী ভাবে তাবু টাঙিয়ে সারাদিন দোকানপাট করে রাতে সব গুটিয়ে নিয়ে চলে যান। মহাস্থানগড় মাজার এলাকা ও পর্যটক এলাকাতে দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে মাজার জিয়ারতকারী ও ভ্রমন পিপাসুরা এখানে বেড়াতে আসেন। মহাস্থান ত্রি-মোহনী এলাকা এখন মহাস্থানের সবচেয়ে বড় ব্যস্ততম এলাকা।
এখানে জনগণের চলাচলের ব্যাঘাত ও দুর্ভোগ সৃষ্টি করে
রাতারাতি অবৈধ ভাবে স্থায়ী স্থাপনা নির্মাণ করেন একটি ভূমিদস্যু চক্র। যাদের বিরুদ্ধে থানায় চাঁদাবাজিসহ একাধিক অভিযোগ রয়েছে। তারা কথিত গড়মহাস্থান নামক একটি প্রেসক্লাবের নাম করে এখানে অবৈধভাবে সরকারি জায়গা দখলের চেষ্ট করছে বলে অনেকেই অভিযোগ করেছেন।
এবিষয়ে একাধিক এলাকাবাসীর অভিযোগ, মহাস্থান ত্রি-মোহনী এলাকায় মহাসড়ক সংলগ্নভাবে অবৈধ দখলকৃত জায়গা যেকোন মুহূর্তে বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। কারণ এই অবৈধ স্থাপনার কারণে সড়কে চলাচল যানবাহন পাশ কাটলে পথচারীরা রাস্তায় চলতে চাপা পড়ে বড় ধরণের দুর্ঘটনা কবলিত হয়ে অসংখ্য প্রাণহানির ঘটনা ঘটতে পারে। স্থানীয় ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী বলেন, মহাস্থান প্রেসক্লাব দেখেছি ১৯৯৮ইং সালে প্রতিষ্ঠিত। মহাস্থান সরকারি জায়গা অবৈধভাবে দখল করে যে প্রেসক্লাবের নাম শোনা যাচ্ছে এটার নাম কোনদিন শুনিনি বা এখানে দেখিনি। এলাকার বেশকিছু অসাধু ব্যক্তিরা এই নাম ব্যবহার করে সরকারি জায়গা অবৈধভাবে স্থাপনা নির্মাণ করে ভোগদলের অপচেষ্টা করছে। এরই ধারাবাহিকতায় মহাস্থানে জনগণের চলাচল নির্বিঘ্ন ও সরকারি জায়গা দখলমুক্ত করতে এলাকার সচেতন মহল সেটিকে গুড়িয়ে দিয়েছে। এদিকে সরকারি জায়গা সচেতন এলাকাবাসী মুক্ত করায় ভূমিদস্যুরা তাদের সন্ত্রাসী আখ্যায়িত করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে তাদের মান ক্ষুন্ন করছে বলে তারা ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন৷ মহাস্থানে ভূসিদস্যু কর্তৃক দখলকৃত অবৈধ স্থাপনা স্থানীয় এলাকাবাসী গুড়িয়ে দেওয়ায় জনমনে দারুন স্বস্তি ফিরে এসেছে।।
এবিষয়ে শিবগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান ফিরোজ আহমেদ রিজু বলেন, মহাস্থান একটি শান্তিপ্রিয় এলাকা। এখানে কেউ অশান্ত পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাইলে আমরা স্থায়ী ভাবে মেনে নিবো না। সরকারি জায়গা যদি সরকার দ্রুত সময়ে কাজ না করে তাহলে সাময়িক ভাবে সবাই ভোগদখল করতে পারে। এজন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অনুমতি নিয়ে ভোগ করলে কেউ বাঁধা দেবে না। কিন্তু কোন তোয়াক্কা না করে অবৈধ প্রভাব খাটিয়ে জায়গা দখল করে সংঘাতময় পরিস্থিতি সৃষ্টি করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। আইনি প্রক্রিয়ায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আরো পড়ুন
অনুমোদনের জন্য তথ্যমন্ত্রণালয়ে আবেদন প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ
Theme Customized By BreakingNews